জাতীয়মতামতলাইফস্টাইল

কে নেবে এই তিনজনের দায়িত্ব এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়

ঢাকায় নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে সংসার ছিল অপু বিশ্বাসের। ২০০৮ সালে গোপনে বিয়ে করেন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি হাসপাতালে জন্ম হয় তাদের একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়ের। ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল ছেলেকে নিয়ে একটি টিভি চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে এসে গোপন কথা ফাঁস করে দেন অপু ।

কাঁদতে কাঁদতে একগুচ্ছ অভিযোগ আনেন বাংলাদেশের এই অভিনেত্রী। জানান, শাকিব তাঁর সন্তানকে লোকসমাজে স্বীকৃতি দিচ্ছে না। তার পাঁচ মাস পর অর্থাৎ ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর নানা অভিযোগ তুলে অপুকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব। ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি আইনিভাবে পথ আলাদা হয় দুজনের।

চলতি মাসেই ঢাকাই সিনেমার আরেক নায়িকা শবনম বুবলি ফাঁস করেছেন তিনি শাকিবের দ্বিতীয় ছেলের মা। এই সন্তানের খবরও লুকিয়েই রেখেছিলেন শাকিব খান আর বুবলী। আমেরিকায় গিয়ে সেই সময় সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন ওই অভিনেত্রী। প্রসঙ্গত, অপুর ছেলে আব্রাহাম জয় হয়েছিল কলকাতারই এক হাসপাতালে।

বাংলাদেশের সুপাস্টার শাকিব খানের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আলোচনা থামছে না। অপু বিশ্বাসের পর শবনম বুবলী- কো-স্টারের সঙ্গে গোপনে বিয়ে, তারপর সন্তানের জন্ম দেওয়া এবং পরে সম্পর্কে ইতি। দু-বার শাকিবের ‘লাভ স্টোরি’র একইরকম এন্ডিং দেখে বেশ বিরক্ত তাঁর ভক্তরাও। অভিযোগ, পালটা অভিযোগের পর্ব জারি রয়েছে। দিন কয়েক আগেই শাকিব খান জানিয়েছিলেন অপু এবং বুবলী, দুজনেই তাঁর জীবনে অতীত! তবে রবিবার বিস্ফোরক ফেসবুক লাইভে শাকিব খানকে নিজের স্বামী হিসাবেই পরিচয় দিলেন বুবলী। শুধু তাই নয়,শাকিবের প্রাক্তন স্ত্রী তথা সন্তানের মা অপু বিশ্বাসকে নিয়েও নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন বুবলী।

এদিন ফেসবুক লাইভে ঝরঝরিয়ে কাঁদলেন নায়িকা। শাকিব খানের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কাটাছেঁড়া বন্ধ করতে সাংবাদিক বৈঠক করার কথা ছিল বুবলীর। সেই পথে না হেঁটে ফেসবুক ভিডিয়োয় যাবতীয় সাফাই দিলেন শবনম বুবলী। অপু-শাকিবের ঘর ভাঙার দায় এড়িয়ে তাঁর স্পষ্ট কথা, ‘আমি কারুর ঘর ভাঙিনি’। শাকিব খানের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর সময় অপু-শাকিবের বিয়ে ও সন্তানের কথা কিছুই জানতেন না বুবলী। বাকি দুনিয়ার মতো বুবলীর কাছেও স্ত্রী-সন্তানের অস্তিত্বের কথা গোপন করেছেন ‘নাকাব’ তারকা, অভিযোগ তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রীর।

বুবলী বলেন, ‘কেউ যদি সংসার জীবনে অসুখী থাকেন, তারপর যদি অন্য কারও সাথে সম্পর্কে জড়ান, যার সাথে সম্পর্কে জড়ালেন সেখানে তার কী দোষ…আমার জন্য কারও সংসার ভাঙেনি। আমি তাদের মাঝে আসার আগে থেকেই তাদের মধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। অপু বিশ্বাস তো নিজেই বলেছেন, তার সাথে শাকিব খানের যোগাযোগ বন্ধ ছিল। তখন তো আমি ছিলাম না।’

বুবলীর কথায় ২০১৬ সালে শাকিবের সঙ্গে বন্ধুত্ব শুরু তাঁর। সেইসময় মেন্টরের মতো বুবলীকে গাইড করতেন শাকিব। বেশ কয়েক বছর অজ্ঞাতবাসে থাকবার পর ২০১৭ সালে প্রকাশ্যে আসেন অপু বিশ্বাস। ছেলে কোলে নিয়ে এক টিভি অনুষ্ঠানে বসে জানান তিনি শাকিবের স্ত্রী এবং আব্রাম জয় তাঁদের সন্তান। বুবলীর অভিযোগ, সেইসময় ফোন করে অপু দুর্ব্যবহার করেছিলেন বুবলীর সঙ্গে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে ‘গলুই’ নায়িকা পূজা চেরির সঙ্গে শাকিব খানের প্রেমের গুঞ্জন রটতেই বোমা ফাটান বুবলী। ফেসবুক পোস্টে তিনি প্রথমে বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে আনেন। পরে সন্তান শেহজাদ খান বীরের ছবি পোস্ট করে লেখেন সে তাঁর ও শাকিবের সন্তান। জানান, ২০২০ সালের মার্চ মাসে শাকিবের সন্তানের মা হয়েছেন বুবলী। ২০১৮ সালেই গোপনে বিয়ে করেছিলেন দুজনে।

পাশাপাশি বুবলীর আরও দাবি, চার বছরের বিবাহিত জীবনে শাকিব আর্থিকভাবে মোটেই পাশে থাকেনি তাঁর। এমনকী ছেলে শাহজাদ বীরের ভরণপোষণের জন্যও পয়সা খরচ করেননি শাকিব।

৪১ মিনিটের ওই ভিডিওতে বুবলী দাবি করেছেন,’ বিয়ে বা আমার সন্তান পৃথিবীতে আসার পর থেকে আমি কোনও আর্থিক সহায়তা নিইনি। স্বামী বা সন্তানের বাবা হিসেবে অবশ্যই এটা ওনার অনেক বড় দায়িত্ব। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ তার ওপর নির্ভর করে। আমার সন্তানের বয়স তিন বছরের কাছাকাছি, আজ অব্দি আমি কখনোই আর্থিক সহায়তা নিইনি। সমস্ত কিছু নিজেই বহন করছি।’

বুবলী জানিয়েছেন ছেলেকে নিয়ে আমেরিকাতে থাকবার সময় অনেক টাকা খরচ হয়েছে তাঁর। সেইসময় শাকিব খান তাঁকে ১৫ হাজার ডলার (১২ লক্ষ ২৫ হাজার টাকারও বেশি) দিয়ে সাহায্য করেছিলেন। উপহার দিলেও নিয়মিত আর্থিক সহায়তা বলতে শাকিবের কাছ থেকে কিছুই পাননি তিনি। বুবলী বলেন অন্য মায়েদের মতো ছেলেকে বড় করতে তাঁকেও সংগ্রাম করতে হচ্ছে, তাঁর ইঙ্গিত অপু বিশ্বাসের দিকেই তেমনটাই বলছেন নিন্দকরা।

গত সেপ্টেম্বর মাসে ‘গলুই’ নায়িকা পূজা চেরির সঙ্গে শাকিব খানের প্রেমের গুঞ্জন রটতেই বোমা ফাটান বুবলী। ফেসবুক পোস্টে তিনি প্রথমে বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে আনেন। পরে সন্তান শেহজাদ খান বীরের ছবি পোস্ট করে লেখেন সে তাঁর ও শাকিবের সন্তান। জানান, ২০২০ সালের মার্চ মাসে শাকিবের সন্তানের মা হয়েছেন বুবলী। ২০১৮ সালেই গোপনে বিয়ে করেছিলেন দুজনে।

পাশাপাশি বুবলীর আরও দাবি, চার বছরের বিবাহিত জীবনে শাকিব আর্থিকভাবে মোটেই পাশে থাকেনি তাঁর। এমনকী ছেলে শাহজাদ বীরের ভরণপোষণের জন্যও পয়সা খরচ করেননি শাকিব।

৪১ মিনিটের ওই ভিডিওতে বুবলী দাবি করেছেন,’ বিয়ে বা আমার সন্তান পৃথিবীতে আসার পর থেকে আমি কোনও আর্থিক সহায়তা নিইনি। স্বামী বা সন্তানের বাবা হিসেবে অবশ্যই এটা ওনার অনেক বড় দায়িত্ব। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ তার ওপর নির্ভর করে। আমার সন্তানের বয়স তিন বছরের কাছাকাছি, আজ অব্দি আমি কখনোই আর্থিক সহায়তা নিইনি। সমস্ত কিছু নিজেই বহন করছি।’

বুবলী জানিয়েছেন ছেলেকে নিয়ে আমেরিকাতে থাকবার সময় অনেক টাকা খরচ হয়েছে তাঁর। সেইসময় শাকিব খান তাঁকে ১৫ হাজার ডলার (১২ লক্ষ ২৫ হাজার টাকারও বেশি) দিয়ে সাহায্য করেছিলেন। উপহার দিলেও নিয়মিত আর্থিক সহায়তা বলতে শাকিবের কাছ থেকে কিছুই পাননি তিনি। বুবলী বলেন অন্য মায়েদের মতো ছেলেকে বড় করতে তাঁকেও সংগ্রাম করতে হচ্ছে, তাঁর ইঙ্গিত অপু বিশ্বাসের দিকেই তেমনটাই বলছেন নিন্দকরা।

গত সেপ্টেম্বর মাসে ‘গলুই’ নায়িকা পূজা চেরির সঙ্গে শাকিব খানের প্রেমের গুঞ্জন রটতেই বোমা ফাটান বুবলী। ফেসবুক পোস্টে তিনি প্রথমে বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে আনেন। পরে সন্তান শেহজাদ খান বীরের ছবি পোস্ট করে লেখেন সে তাঁর ও শাকিবের সন্তান। জানান, ২০২০ সালের মার্চ মাসে শাকিবের সন্তানের মা হয়েছেন বুবলী। ২০১৮ সালেই গোপনে বিয়ে করেছিলেন দুজনে।

পাশাপাশি বুবলীর আরও দাবি, চার বছরের বিবাহিত জীবনে শাকিব আর্থিকভাবে মোটেই পাশে থাকেনি তাঁর। এমনকী ছেলে শাহজাদ বীরের ভরণপোষণের জন্যও পয়সা খরচ করেননি শাকিব।

৪১ মিনিটের ওই ভিডিওতে বুবলী দাবি করেছেন,’ বিয়ে বা আমার সন্তান পৃথিবীতে আসার পর থেকে আমি কোনও আর্থিক সহায়তা নিইনি। স্বামী বা সন্তানের বাবা হিসেবে অবশ্যই এটা ওনার অনেক বড় দায়িত্ব। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ তার ওপর নির্ভর করে। আমার সন্তানের বয়স তিন বছরের কাছাকাছি, আজ অব্দি আমি কখনোই আর্থিক সহায়তা নিইনি। সমস্ত কিছু নিজেই বহন করছি।’

বুবলী জানিয়েছেন ছেলেকে নিয়ে আমেরিকাতে থাকবার সময় অনেক টাকা খরচ হয়েছে তাঁর। সেইসময় শাকিব খান তাঁকে ১৫ হাজার ডলার (১২ লক্ষ ২৫ হাজার টাকারও বেশি) দিয়ে সাহায্য করেছিলেন। উপহার দিলেও নিয়মিত আর্থিক সহায়তা বলতে শাকিবের কাছ থেকে কিছুই পাননি তিনি। বুবলী বলেন অন্য মায়েদের মতো ছেলেকে বড় করতে তাঁকেও সংগ্রাম করতে হচ্ছে, তাঁর ইঙ্গিত অপু বিশ্বাসের দিকেই তেমনটাই বলছেন নিন্দকরা।

তাই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সকলের মুখে মুখে কি কথা কে নেবে এই তিন জনের দায়িত্ব?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button