ফিরে আসা সরফরাজে ঘুরে দাঁড়াল পাকিস্তান, বাবরের সেঞ্চুরি

বাবর আজমের সেঞ্চুরি, প্রায় চার বছর পর টেস্ট খেলতে নামা সরফরাজ আহমেদের ৮৬, পঞ্চম উইকেটে দুজনের ১৯৬ রানের জুটিতে করাচি টেস্টে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে কঠিন অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পাকিস্তান। ৪৮ রানে ৩ উইকেট হারানো স্বাগতিকেরা প্রথম দিন শেষ করেছে ৫ উইকেটে ৩১৭ রান নিয়ে। শেষ বেলায় সরফরাজ ফিরলেও অধিনায়ক বাবর অপরাজিত আছেন ১৬১ রানে, তাঁর সঙ্গী আগা সালমান।

২০০২ সালের পর এই প্রথম পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট খেলতে নামল নিউজিল্যান্ড। নতুন কিউই অধিনায়ক টিম সাউদি টসে হেরেছিলেন, তবে বোলিংয়ে তাঁদের শুরুটা হয়েছিল দারুণ। ব্যাটিংয়ে নামা পাকিস্তান পথ হারাতে বসেছিল শুরুতেই। প্রথম ঘণ্টাতেই তারা হারায় দুই ওপেনার আবদুল্লাহ শফিক ও ইমাম-উল-হকের সঙ্গে শান মাসুদকেও। স্পিনারদের টার্ন নাকচ করে খেলতে গিয়ে এজাজ প্যাটেলের বলে শফিক ও মাইকেল ব্রেসওয়েলের বলে স্টাম্পিং হন মাসুদ। ছেলেদের টেস্টে এই প্রথমবার ম্যাচের প্রথম দুটি উইকেটই পড়ল স্টাম্পিংয়ে। ইমাম আউট হন ব্রেসওয়েলকে তুলে মারতে গিয়ে মিড অফে ক্যাচ দিয়ে।

৪৮ রানে ৩ উইকেট হারানো পাকিস্তানের চাপ একটু সামাল দেয় বাবর ও সৌদ শাকিলের ৬২ রানের চতুর্থ উইকেট জুটি। মধ্যাহ্নবিরতির ঠিক আগ দিয়ে অবশ্য ব্রেকথ্রু পায় নিউজিল্যান্ড। অধিনায়ক টিম সাউদির বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে গালিতে ধরা পড়েন ২২ রান করা শাকিল। পাকিস্তান চতুর্থ উইকেট হারায় ১১০ রানে।

পরের গল্পটা বাবর ও সরফরাজের। ১২ রানে ড্যারিল মিচেলের হাতে স্লিপে জীবন পান বাবর, মধ্যাহ্নবিরতির পর প্রথম ওভারে সম্ভাব্য রানআউট থেকেও বাঁচেন। এরপর ফিরে তাকাননি আর। ৭৬ বলেই ৫০ পূর্ণ করে ফেলেন, চা-বিরতির আগে পেয়ে যান সেঞ্চুরিও। ৯৭ রানে দাঁড়িয়ে ব্রেসওয়েলকে ডিপ মিডউইকেট দিয়ে মারা ছক্কায় মাইলফলক পূর্ণ হয় তাঁর। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাবরের এটি ২৮তম সেঞ্চুরি, ছক্কা মেরে এ মাইলফলকে পৌঁছালেন এই প্রথমবার। এজাজ প্যাটেলকে মিড অফের ওপর দিয়ে মারা চারে ১৪৯ রানে যাওয়া বাবর ১৫০ রানে পৌঁছান তাঁর পরের বলে সিঙ্গেল নিয়ে। টেস্ট ক্যারিয়ারে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার তিনি দেড় শর দেখা পেলেন।

২০১৯ সালের জানুয়ারির পর আবার টেস্ট খেলতে নামা সরফরাজের ফিফটি করতে লাগে ৮৩ বল। শুরুতে একটু নড়বড়ে ছিলেন, তবে ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণ বাড়িয়েছেন ইনিংসে। স্মরণীয় এক সেঞ্চুরির পথেই এগোচ্ছিলেন। শেষ বেলায় এজাজের অফ স্টাম্পের বাইরের ফুল লেংথের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে স্লিপে মিচেলের ভালো ক্যাচে পরিণত হয়ে তাঁকে থামতে হয় সেঞ্চুরি থেকে ১৪ রান দূরেই। বাবরের মোটামুটি সহজ ক্যাচ ফেললেও এ ক্যাচটি নিচু হয়ে ভালোভাবেই নেন মিচেল। বাবরের সঙ্গে তাঁর জুটি থামে ১৯৬ রানেই। দ্বিতীয় নতুন বল আসার সঙ্গে সঙ্গেই নিয়ে নেন টিম সাউদি, সরফরাজের উইকেটটিও আসে তাতেই।

দিনের শেষ ওভারে বাবরকে এলবিডব্লিউ দিয়েছিলেন আম্পায়ার আলিম দার। লেগ স্টাম্প থেকে টার্ন করা বলটা বাবরের ব্যাট ফাঁকি দিয়ে আঘাত করে পেছনের পায়ে। রিভিউ নেওয়ার সময় তেমন আত্মবিশ্বাসী মনে হয়নি তাঁকে, তবে বলটা স্টাম্পের ওপর দিয়ে যেত বলে দেখায় হকআই। পাকিস্তান অধিনায়ক দিন শেষ করেন অপরাজিত থেকেই। এখন পর্যন্ত ইনিংসে ১৫টি চারের সঙ্গে ১টি ছক্কা মেরেছেন বাবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *