শিক্ষা ও সাহিত্য

যারা নতুন চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের জন্য সেরা পরামর্শ!

এস এম আলাউদ্দিন মাহমুদ

সহকারী জজ/জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

শুধু পড়াশোনা করে ভালো চাকরি পাওয়া সহজ নয়। পড়াশোনার পাশাপাশি চাকরি পাওয়ার জন্য সঠিক কৌশল অবলম্বন করা খুবই জরুরি। যারা বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন তাদের অধিকাংশই ব্যর্থ হচ্ছেন কারণ তারা সঠিক কৌশল অবলম্বন করেননি। তাই সবার আগে সঠিক কৌশল অবলম্বন করা উচিত। কৌশলগতভাবে আপনি কম পড়াশুনা করলেও সহজেই ভালো চাকরি পাবেন।

আপনি হয়তো ভাবছেন, এত পরীক্ষার্থী আমার দ্বারা কিছুই হবে না। কিন্তু বাস্তবতা হলো প্রকৃত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা খুবই কম। আপনি একটি জিনিস লক্ষ্য করবেন যে একজন ব্যক্তি একাধিক চাকরি পাচ্ছেন এবং কিছু লোক একের পর এক পরীক্ষা দিচ্ছেন।

এর প্রধান কারণ হল আপনি সঠিক কৌশল অবলম্বন করেননি এবং আপনার দুর্বলতার ক্ষেত্রগুলোকে চিহ্নিত ও সমাধান করতে সক্ষম হননি। হাজার হাজার অনুপ্রেরণামূলক নিবন্ধ পড়া এবং শোনার মাধ্যমে আপনি নিজেকে অনুপ্রাণিত না করলে আপনি কখনই সহজে চাকরি পাবেন না।

কোনো কাজকে অবমূল্যায়ন করবেন না। অনেকেই আছেন যারা প্রথমে বিসিএস ছাড়া অন্য কোনো চাকরির পরীক্ষা দেন না। কিন্তু বাস্তবতা হলো প্রতি বছর 2000 থেকে 2400 এর বেশি ক্যাডার থাকে না। কিন্তু চিন্তা করুন প্রতি বছর কত লক্ষ শিক্ষার্থী স্নাতক হচ্ছে তাই শুরু থেকেই বিসিএসের পাশাপাশি অন্য সব চাকরির পরীক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করুন।

পরে আর কষ্ট করতে হবে না। সেই সময় যারা যোগ্য তারাই বাঁচবে। বাকিদের অনেক কঠিন সময় মোকাবেলা করতে হয়। তাই এই সময় নষ্ট করবেন না, নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলুন।

চাকরির অভাব নেই কিন্তু যোগ্য প্রার্থীর বড় অভাব। চাকরি যোগ্য লোকের পিছনে দৌড়ায়, যোগ্য লোকেরা চাকরির পিছনে দৌড়ায় না।

আবার অনেকে মনে করেন, মামা খালু না পেলে চাকরি নেই, এগুলো ঠিক নয়, যোগ্যতা থাকলে খুব সহজেই আপনার পছন্দের চাকরি পেয়ে যাবেন, ইনশাআল্লাহ।

এমনও অনেকে আছেন যারা আরও পড়তে চান কিন্তু তাদের বন্ধুরা তাদের কৌতুক করতে বলে। মনে রাখবেন, আপনি যখন চাকরি পাবেন, তারাই প্রথমে আপনার কাছে পরামর্শ চাইবে এবং আপনাকে বলবে যে আপনি ঠিক ছিলেন। তাই পড়াশোনা চালিয়ে যাও। কে কি বলল তা শোনার সময় আপনার নেই। কেউ নেতিবাচক কথা বললে অবিলম্বে উত্তর দেওয়ার দরকার নেই, কারণ আপনার ফলাফলই হবে সেরা উত্তর।

আপনি ভাবছেন, আপনার এই সমস্যাটি এমন সমস্যা যার কারণে আপনি আপনার পড়াশোনায় মনোযোগ দিতে পারছেন না। কিন্তু বাস্তবতা হল সমস্যা ছাড়া পৃথিবীতে কেউ নেই। আপনি অন্য লোকেদের প্রতি যে সহায়তা প্রদান করেন তার সাথে আপনাকে আরও বৈষম্যমূলক হতে হবে। চাকরি পেলে হাজার সমস্যা এক নিমিষেই শেষ হয়ে যাবে।

আমি একজন ম্যাজিস্ট্রেট, আমি একজন ব্যক্তিকে আর্থিক সাহায্য ছাড়াও বিভিন্ন উপায়ে সাহায্য করতে পারি যদি আপনি চান যে আপনি যখন বেকার থাকেন তখন আপনি তা করতে পারবেন না। তাই আগে নিজের জন্য একটা ভালো অবস্থান তৈরি করুন তারপর সবার কথা ভেবে সাধ্যমত সাহায্য করার চেষ্টা করুন। আপনার সম্পূর্ণ সম্ভাবনার চেয়ে কম যান না।

পড়ালেখার কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই। ভালো লাগলেই পড়ুন। আপনার চেয়ে কে বেশি মেধাবী, কে কী পড়ে তা নিয়ে কখনো ভাববেন না। নিজেকে সর্বদা সেরা ভাবুন।

সর্বোপরি, যথেষ্ট নম্র হতে শিখুন এবং সর্বদা নিজেকে ছোট ভাবুন। কারণ তুমি যখন নিজের চোখে ছোট হবে, আল্লাহ তায়ালা তোমাকে সবার চোখে বড় করে দেবেন, ইনশাআল্লাহ। সবাই ভালো থাকবেন নিরাপদ থাকবেন সবার জন্য শুভকামনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button